বুধ. আগ ১৭, ২০২২

‘এলিয়েনদের সঙ্গে ট্রাম্পের যোগাযোগ, চুক্তিও হয়েছে মার্কিন প্রশাসনের’!

সত্যিই কি পৃথিবী এই মহাবিশ্বে একলা? নাকি অন্য গ্রহেও আছে প্রাণ? এই প্রশ্নের উত্তর আজও মেলেনি। কিন্তু এবার এক চাঞ্চল্যকর ও অদ্ভুত দাবি করলেন ইসরায়েলের মহাকাশ নিরাপত্তা বাহিনীর সাবেক প্রধান হাইম এশেদ। ৮৭ বছরের এশেদের দাবি, ভিনগ্রহী তথা এলিয়েন রয়েছে। এবং স্বয়ং ডোনাল্ড ট্রাম্প সেটা জানেনও! এমনকী মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে এলিয়েনদের সংগঠনের নাকি রীতিমতো চুক্তিও হয়েছে!

ঠিক কী নিয়ে হয়েছে ওই চুক্তি? এশেদ জানাচ্ছেন, ভিনগ্রহীরা মহাবিশ্বের গঠন নিয়ে গবেষণা করতে চায়। সেই নিয়েই চুক্তি। এমনকী মঙ্গলে নাকি সেজন্য মাটির তলায় গুপ্ত ঘাঁটিও বানানো হয়েছে বলে দাবি অশীতিপর এশেদের। কিন্তু কেন এমন চুক্তির কথা গোপন রাখা হয়েছে? আসলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন বিষয়টা গোপন রেখেছে, কারণ মানব সভ্যতা এখনই এর জন্য প্রস্তুত নয়। ভিনগ্রহীদের ইচ্ছা, মানুষ আরও উন্নতি করুক এই সংক্রান্ত গবেষণায়। তাহলেই তারা মহাকাশের রহস্যকে বুঝতে পারবে। এমনই দাবি এশেদের। এই একই দাবি তিনি তার বই ‘দ্য ইউনিভার্স বিয়ন্ড দ্য হরাইজন’-এও করেছেন।

সেই সঙ্গে তিনি এমন দাবিও করেছেন, পাঁচ বছর আগে এমন দাবি করলে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হত। তবে তিনি এমন সব দাবি করার পরেও এখনও পর্যন্ত মার্কিন প্রশাসন কিংবা খোদ ট্রাম্প, কেউই কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি বিষয়টি নিয়ে। কিন্তু নেটিজেনরা দারুণ উত্তেজিত এমন অদ্ভুত দাবির কথা জেনে। এক নেটিজেন টুইটারে লিখেছেন, ‘২০২০ সালে এমনিতেই আজব ব্যাপার স্যাপার ঘটে চলেছে। এবার ইসরায়েলের অধ্যাপক দাবি করেছেন, তার দেশ ও আমেরিকার সঙ্গে ভিনগ্রহীদের যোগাযোগ রয়েছে।’ এই নিয়ে নানা মিমও ছড়িয়ে পড়েছে নেট দুনিয়ায়।

প্রসঙ্গত, অন্য গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব আছে কিনা তা নিয়ে তর্ক আজকের নয়। এমনিতেই বহু কন্সপিরেসি থিয়োরিস্টরা বিভিন্ন সময়ে আকাশে ইউএফও দেখতে পাওয়ার মতো আজব দাবি করেছেন। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসাও ভিনগ্রহীদের অস্তিত্বের বিষয়টি পুরোপুরি উড়িয়ে দেয়নি। যদিও এ নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনও সঠিক প্রমাণ মেলেনি।

Developed by - Web Nest Ltd.

Helpline - +88 01719305766