শুক্র. আগ ৭, ২০২০

ইদলিবে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পরই এরদোগান-পুতিন ফোনালাপ

সিরিয়ার ইদলিবে ক্রমবর্ধমান সংঘর্ষের ঘটনায় আসাদ বাহিনী ও তার জোটের সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্কের টানাপোড়েন দেখা দিয়েছে। প্রদেশটিতে তুর্কি সমর্থিত বিদ্রোহীদের হামলায় রাশিয়া সমর্থিত আসাদ বাহিনীর ৫১ সদস্য নিহত হয়েছে। এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতেই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের ইদলিব সংকট নিয়ে আলোচনা।খবর ইয়েনি শাফাকের।

বুধবার ক্রেমলিন জানায়, এ দুই নেতার সঙ্গে ইদলিব প্রদেশ নিয়ে টেলিফোনে কথা হয়েছে।

ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ফোনালাপে এরদোগান ও পুতিনের মধ্যে সিরিয়া নিয়ে রাশিয়া এবং তুরস্কের মধ্যে চুক্তি বাস্তবায়নের বিষয়টি গুরুত্ব পায়। তারা চুক্তিটি বাস্তবায়নে সম্মতি জানিয়েছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সিরিয়ায় তুর্কি সমর্থিত বিদ্রোহীদের হামলায় রুশসমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর ৫১ সদস্য নিহত হয়েছে। বিদ্রোহীদের সর্বশেষ ঘাঁটির বিরুদ্ধে অভিযানে অগ্রগতির পরই এমন ঘটনা ঘটেছে।

এ দিকে ইদলিব পরিস্থিতি নিয়ে সিরিয়ার সরকারি বাহিনীকে হুশিয়ারি দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, যদি আর কোনো তুর্কি সেনার ওপর হামলা করা হয়, তবে সিরিয়ায় স্থল ও আকাশ– যে কোনো জায়গায় সিরীয় সরকারি বাহিনীর ওপর হামলা চালাবে তুর্কি সেনাবাহিনী।

আসাদ বাহিনীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ফেব্রুয়ারির শেষনাগাদ সিরীয় বাহিনীকে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় ইদলিবের তুর্কি পর্যবেক্ষণ চৌকির বাইরে সরিয়ে দিতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

Developed by - Web Nest Ltd.

Helpline - +88 01719305766